শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ

শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ সম্পর্কিত সকল গাইডলাইন জানুন!

ক্যান্টমেন্ট পাবলিক কলেজ কিংবা স্কুলগুলির প্রতি আজকাল অবিভাবকগণ যেনো একটু বেশিই আগ্রহী। মানসম্মত পড়াশোনা এবং কঠিন নিয়মের মাঝে এই টাইপের প্রতিষ্ঠানগুলি পরিচালিত হয়ে আসছে। বোধহয় এর কারণেই অবিভাবকদের অনেক বড় একটি অংশ তার প্রিয় সন্তানকে ক্যান্টমেন্ট স্কুল কিংবা কলেজে ভর্তি করিয়ে দিতে চান। চাইবেনই না বা কেনো! শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান হিসেবে এই ক্যাটাগরিতে পড়া কলেজগুলি শিক্ষার্থীদের মানুষের মতো মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার ক্ষেত্রে শতভাগই সফল হতে পারছে। ঠিক তেমনই একটি প্রতিষ্ঠান নিয়ে আজ আমরা আলোচনা করতে চলেছি। আমাদের আজকের আলোচনার মূল টপিক হলো শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ এর পরিচিতি, রিভিউসহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ তথ্য। চলুন এবারে সরাসরি মূল আলোচনায় যাওয়া যাক। 

শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ পরিচিতি

নাম শুনেই হয়তো বুঝতে পেরেছেন শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্টর পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ একটি পাবলিক শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান। তবে এর পড়াশোনার মান, শিক্ষা কার্যক্রম, সুযোগ-সুবিধা, নিয়মনীতি সবকিছু পর্যালোচনা করলে দেখা যাবে এটি কোনো অংশেই সরকারি শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানের চাইতে কম গুরুত্বপূর্ণ নয়। 

আমাদের আজকের শিশু আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। একটা সময় তারাই দেশ ও জাতিকে নেতৃত্ব প্রদান করবে। ঠিক এমনটা চিন্তা করেই প্রতিষ্ঠা লাভ করে এই শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ নামের শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানটি। এই প্রতিষ্ঠানের বয়স খুব বেশিদিন না হলেও বর্তমানে এর মানসম্মত শিক্ষা-কার্যক্রমের কারণে সারাদেশে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ। 

বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষ পদে দায়িত্ব পালন করছেন লে: কর্নেল (অব:) মুহাম্মদ আফজাল হোসেন, পিএসসি, জি+। এছাড়াও প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যানের পদে কাজ করছেন বিএ-৪৬৩৮ ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এস এম জাকারিয়া হুসাইন এএফডব্লিউসি, পিএসসি। অধ্যক্ষ এবং চেয়ারম্যানের পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানটিকে এগিয়ে নিতে একঝাঁক দক্ষ, নিবেদিত-প্রাণ, যোগ্য ও প্রশিক্ষিত শিক্ষক নিষ্ঠার সাথে বছরের পর বছর কাজ করে আসছেন। 

বর্তমানে এই ক্যান্টনম্যান্ট স্কুল এন্ড কলেজ পরিচালিত হয়ে আসছে একইসাথে প্রধান পৃষ্ঠপোষক, সদর দপ্তর, লজিস্টিক্স এরিয়ার পৃষ্ঠপোষকতায় এবং সভাপতি, এরিয়া কমান্ডার, স্কুল পরিচালনা পরিষদ, কমান্ডার এবং ৪৬ স্বতন্ত্র পদাতিক ব্রিগেড এর পরিচালনায়। 

ভর্তিসহ যেকোনো প্রয়োজনে শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্টর পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ এর একটি নিজস্ব ওয়েবসাইটের ব্যবহার করা হয়ে থাকে। সাধারণত ভর্তি আবেদনসহ প্রতিষ্ঠানটির বিভিন্ন শূণ্য পদে নিয়োগের নোটিশ এবং আবেদন কার্যক্রম পরিচালনার কাজে এই ওয়েবসাইট ব্যবহার করা হয়ে থাকে। 

শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ এর অবস্থান

কার্যত শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্টর পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ এর পুরো ঠিকানা হলো সেক্টর – ১০, পূর্বাচলের জলসিঁড়ি আবাসন, বাংলাদেশ। অবস্থান সম্পর্কে আরেকটু বিস্তারিতভাবে যদি বলি তবে বলতে হয়, বাংলাদেশ-এ অক্ষাংশ 23.830953 এবং 90.5557817 দ্রাঘিমাংশে অবস্থিত এই শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ। 

শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ এর ইতিহাস 

প্রতিষ্ঠানটির বয়স খুব একটা হয়নি। ২০১৮ সালে বেশ বড়সড় একটি মাঠে গড়ে উঠে এই শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্টর পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ। ২০১৮ সালে প্রতিষ্ঠানটিকে গড়ে তোলা হলেও এর মূল কার্যক্রম শুরু হয় গত ০১ জানুয়ারি ২০২১ তারিখ থেকে। একেবারে প্রতিষ্ঠানকালীন সময়ে এর অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন লে: কর্নেল (অব:) মুহাম্মদ আফজাল হোসেন পিএসসি, জি+। বর্তমানে গুগলের কাস্টমার রেটিং অনুযায়ী এই প্রতিষ্ঠানটি ফাইভ স্টার প্রাপ্ত একটি প্রতিষ্ঠান হিসেবে তার কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। একেবারে শুরু থেকে মানসম্মত শিক্ষাদান করে আসার ফলস্বরূপ বেশ অল্প সময়ে সারা বাংলাদেশে তুমুল জনপ্রিয়তা কুড়িয়ে নিতে সক্ষম হয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। 

শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ এর অবকাঠামো 

বলে রাখা ভালো বিশাল একটি খোলা প্রান্তরে প্রায় ৩২৮ কাঠা জমিতে এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি গড়ে তোলা হয়েছে। যার ফলে অবকাঠামোগত দিক দিয়ে প্রতিষ্ঠানটিকে একেবারে ইগনোর করার কোনো অবকাশ নেই। প্রতিষ্ঠানটিতে একটি প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে ১৪ তলাবিশিষ্ট ভবন নির্মাণের অংশ হিসেবে ৩ তলার একটি ভবন তৈরি করা হয়। পাশাপাশি সম্প্রতি এর চৌদ্দতলা ডরমেটরী ভবনের চারতলা সম্পন্ন করা হয়েছে। 

এদিকে বর্তমানে সম্পূর্ণ ১৪ তলাবিশিষ্ট ভবন তৈরির কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলছে। পাশাপাশি কতৃপক্ষ অডিটোরিয়াম ভবনের কাজ শুরু করার পরিকল্পনা ইতিমধ্যেই শেষ করেছে। 

এছাড়াও ২০২১ সালের ডিসেম্বর মাসের মধ্যে প্রতিষ্ঠানটির টিনসেড কলেজ ভবন এবং শিশু পার্ক তৈরির কাজ সম্পন্ন করা হয়। এখানে উল্ল্যেখ্য যে নতুন তৈরি হওয়া এই শিশু পার্কটির নাম রাখা হয়েছে “কোলাহল”। মূলত শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্টর পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ এর শিক্ষার্থীদের কিচির-মিচির কথা এবং হাসিতে পার্কটিকে মুখরিত করে রাখার স্বপ্নের উপর ভিত্তি করেই এমন নামটি রাখা হয়েছে। 

শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ এর শিক্ষা-কার্যক্রম 

অন্যান্য সাধারণ স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষা-কার্যক্রমের মতোই এগিয়ে চলছে শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্টর পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ এর শিক্ষা-কার্যক্রম। বলে রাখা ভালো ২০২১ শিক্ষাবর্ষে প্রতিষ্ঠানটিতে প্রথম শ্রেণী থেকে চতুর্থ শ্রেণী পর্যন্ত শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হলেও চলতি বছরের শুরুতেই প্রতিষ্ঠানটি শিক্ষা-কার্যক্রমের অংশ হিসেবে প্রথম শ্রেণী থেকে একাদশ শ্রেণীতে শিক্ষাদানের কার্যক্রম শুরু করে। 

মোটকথা প্রতিষ্ঠানটিতে শিক্ষা-কার্যক্রমের ১ম অংশ হিসেবে প্রথম শ্রেণী থেকে চতুর্থ শ্রেণী পর্যন্ত প্রভাতি শাখায় বাংলা মাধ্যমে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছে। অন্যদিকে দ্বিতীয় ধাপ কিংবা দ্বিতীয় অংশ হিসেবে পরিচালিত হয়ে আসছে ষষ্ঠ থেকে অষ্টম শ্রেণীর শিক্ষা-কার্যক্রম। সবশেষে তৃতীয় ধাপ হিসেবে থাকছে সরাসরি একাদশ শ্রেণীতে ভর্তির সুযোগ।

শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজে ভর্তির নিয়ম-কানুন 

আপনি যদি আপনার প্রিয় সন্তানকে শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্টর পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজে ভর্তি করিয়ে দিতে চান তবে আমাদের আজকের আর্টিকেলের এই অংশটি আপনার জন্যেই। চলুন তবে এবারে জেনে নেওয়া যাক শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজে ভর্তির নিয়ম-কানুন সম্পর্কে:

  • শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজে ভর্তির ক্ষেত্রে আপনাকে অনলাইন আবেদন প্রক্রিয়ার শরণাপন্ন হতে হবে
  • প্রতিষ্ঠানটির অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে
  • ওয়েবসাইটে গিয়ে নতুন আবেদনকারীকে অবশ্যই “Apply Now” বাটনে ক্লিক করতে হবে
  • এক্ষেত্রে প্রতিটি নতুন আবেদনকারীকে একটি ভর্তি প্রোফাইল তৈরি করতে হবে এবং এই প্রোফাইল পরবর্তীতে স্টুডেন্ট প্রোফাইল হিসেবে ব্যবহৃত হবে 
  • এক্ষেত্রে আরেকটি ব্যাপার মাথায় রাখতে হবে যে, আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার পর একবার প্রোফাইল তৈরি হয়ে গেলে প্রোফাইলে থাকা কোনো তথ্যই আর পরিবর্তন করা যাবে না। সুতরাং সাবধানে আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে।
  • আবেদন করাকালীন সময়ে অবশ্যই আবেদন ফি পরিশোধ করে নিতে হবে
  • আবেদন ফি পরিশোধ করার ক্ষেত্রে মাধ্যম হিসেবে বিকাশ ব্যবহার করতে হবে
  • কোনো কারণে সাথে সাথে আবেদন ফি পরিশোধ করতে না পারলে সকল প্রক্রিয়া সেরে পরবর্তীতে এর পেমেন্ট পে করলেই আবেদন প্রক্রিয়া শতভাগ সফল হিসেবে গন্য হবে 
  • আবেদন প্রক্রিয়া এবং ফি পরিশোধ হয়ে গেলেই একটি এডমিট কার্ড তৈরি হয়ে যাবে
  • সবশেষে একটি নির্দিষ্ট সময়ে সরাসরি শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্টর পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজে গিয়ে সেই তৈরি হওয়া নতুন এডমিট কার্ডটি সংগ্রহ করে নিতে হবে
  • ঢাকা মেডিকেল কলেজ এর সকল তথ্য জানুন!

শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ এর যেকোনো ফি পরিশোধের নিয়ম

শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্টর পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ এর কোনো ফি অনলাইনে পরিশোধ করতে গিয়ে যদি সমস্যায় পড়তে না চান তবে জেনে নিন শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ এর যেকোনো ফি পরিশোধের সঠিক নিয়ম সম্পর্কে। 

  • মোবাইলের কল অপশনে গিয়ে *২৪৭# ডায়াল করুন এবং যারা অ্যাপ ব্যবহার করেন তারা তাদের অ্যাপটি ওপেন করে নিন
  • 4 অপশনটি চাপুন অথবা অ্যাপের পেমেন্ট অপশনে ক্লিক করুন
  • এবারের মোবাইলে 01769019330 মার্চেন্ট বিকাশ একাউন্ট নাম্বার দিন এবং অ্যাপেও সেইম নাম্বারটি টাইপ করুন
  • টাকার পরিমাণটি লিখে রেফারেন্স হিসেবে সংশ্লিষ্ট নোটিশে দেওয়া রেফারেন্সটি টাইপ করে নিন
  • এবার বিকাশ পিন টাইপ করে পেমেন্ট পে করার কাজটি সম্পন্ন করুন

ঘরে বসে শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্টর পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ এর যেকোনো ফি পরিশোধের ক্ষেত্রে উপরের নিয়মগুলি ফলো করুন৷ 

ব্যাস! আবেদন প্রক্রিয়া এবং ভর্তি হওয়ার কাজ শেষ। সবকিছু ঠিক থাকলে কতৃপক্ষ আপনার এই ভর্তি কার্যক্রমের স্বীকৃতি প্রদান করবেন। 

শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ এর সুবিধা

  • প্রতিষ্ঠানটির অফিসিয়াল ওয়েবসাইট ব্যবহারের সুযোগ 
  • ল্যাংগুয়েজ ক্লাব, কালচারাল ক্লাব, ডিবেটিং ক্লাব, ইনডোর গেমস, বার্ষিক ম্যাগাজিন ইত্যাদির ব্যবস্থা
  • ফুটবল, ভলিবল, বাস্কেটবল, ব্যাডমিন্টন ও টেবিল টেনিস এর প্রতিযোগিতা 
  • আধুনিক যন্ত্রপাতি দ্বারা শিক্ষার ডিজিটালাইজেশনের ব্যবস্থা
  • স্মার্ট বোর্ড, প্রজেক্টর, সিসিটিভি, কম্পিউটার ল্যাব ব্যবহারের সুবিধা 
  • শিক্ষার্থীদের প্রতিযোগিতামূলক পরিবেশের উপযোগী করে গড়ে তোলা
  • শিশু পার্কে ঘোরাঘুরি করে মন ভালো করার সুযোগ 
  • শিক্ষার্থীদের একজন প্রকৃত মানুষ, দেশপ্রেমিক ও সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তোলা

ইতি কথা

আলোচনা উপভোগ করতে করতে হয়তো বুঝে গেছেন বাংলাদেশের শিক্ষাব্যবস্থায় এই শেখ রাসেল ক্যান্টনমেন্টর পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ এর গুরুত্ব কতটুকু! প্রতিষ্ঠানটির প্রতি শুভ কামনা জানিয়ে আজকের মতো বিদায় নিচ্ছি! 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *