মোটা হওয়ার প্রাকৃতিক ঔষধ

মোটা হওয়ার প্রাকৃতিক ঔষধ কি? চলুন জেনে নেই প্রাকৃতিক ভাবে মোটা হওয়ার কিছু কার্যকরী পদ্ধতি!

মোটা হওয়ার প্রাকৃতিক ঔষধ কি হতে পারে? বিভিন্ন রকম ঔষধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া এড়িয়ে চলতে প্রাকৃতিক বা ঘরোয়া পদ্ধতি গুলো বর্তমানে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। মোটা হওয়ার জন্য বিভিন্ন ধরনের ঔষধ পাওয়া যায় এবং পাশাপাশি  কিছু প্রাকৃতিক উপায়ও বিদ্যমান।

আপনি যদি মোটা হওয়ার জন্য কোন রকম ওষুধ সেবন করতে না চান তাহলে ঘরোয়া কিছু প্রাকৃতিক উপায়ের মাধ্যমে আপনি চিকন শরীর মোটা করতে পারেন। আজকের আলোচনা করতে যাচ্ছি মোটা হওয়ার কিছু প্রাকৃতিক পদ্ধতি এবং এর সাথে আপনি পেয়ে যাবেন কিছু কার্যকরী ঘরোয়া টিপস ও খাদ্য তালিকা। এ সকল ঘরোয়া পদ্ধতি গুলো সঠিকভাবে মেনে চললে আপনি খুব সহজেই মোটা হতে পারবেন।

মোটা হওয়ার প্রাকৃতিক ঔষধ বা পদ্ধতি

আমরা যারা প্রয়োজনের তুলনায় অনেক বেশি চিকন তারা সবসময় চিন্তায় মগ্ন থাকি কিভাবে মোটা হওয়া যায়। যখন আমরা বিভিন্ন ধরনের পরামর্শ নেওয়ার পরও নিজের শরীরকে  সুন্দর কাঠামো প্রদান করতে পারিনা তখন আমরা অনেকেই হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়ি। এবং আমরা ঔষধের আশ্রয় নিয়ে থাকি। 

বিভিন্ন ধরনের ওষুধের কোর্স সেবন করা শুরু করি নিজের চিকন শরীর মোটা করার জন্য। আমরা বুঝতে পারি না যে এই ঔষধে বিভিন্ন ধরনের প্রতিক্রিয়া রয়েছে যেটি আমাদের শরীরের জন্য অনেক বেশি ক্ষতিকর প্রভাব বয়ে নিয়ে আসে। 

বিভিন্ন ধরনের ঔষধ সেবনে কোর্স শেষ হওয়ার পর হয়তো আপনি আপনার চিকন শরীরকে মোটা করতে পারবেন কিন্তু এই সকল ঔষধ সেবন এর কোর্স শেষ হয়ে গেলে আপনি কিছুদিনের মধ্যে আবার আপনার আগের স্থানে ফিরে যাবেন। আর তাছাড়া আপনার শরীরের বিভিন্ন ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার প্রভাব বিস্তার হবে। যার ফলে আপনি দিনে দিনে অসুস্থ হয়ে পড়তে পারেন। তাই সব থেকে ভালো উপায় হচ্ছে সকল প্রকার ওষুধ সেবন থেকে দূরে থাকা।

প্রাকৃতিক ভাবে নিজের শরীর মোটা করার জন্য যদি আপনি কোন হারবাল ঔষধ সেবন করতে চান তাহলে আপনি সেটি চেষ্টা করে দেখতে পারেন। প্রাকৃতিক ভাবে আসলে তেমন কোন ঔষধের প্রমাণ নেই যা আপনাকে খুব সহজে মোটা করে দিতে পারে। 

হারবাল রুচির ঔষধ সিনকারা বর্তমানে খুবই জনপ্রিয় যা আপনার মুখের স্বাভাবিক রুচিকে অনেক বেশি বাড়িয়ে দেবে এবং আপনার শরীরের বিভিন্ন ধরনের পুষ্টি চাহিদা থাকে সেটা কে পূরণ করবে। আর যখন আপনার শরীরের পুষ্টির চাহিদা পূরণ হয়ে যাবে এবং আপনার মুখে রুচি বৃদ্ধি হবে তখন আপনি অনায়াসেই প্রয়োজনের থেকে বেশি খাবার খাবেন। এতে করে আপনার শরীর আগের থেকে অনেক বেশি ভালো হবে।

সহজে মোটা হওয়ার জন্য কার্যকরী ঘরোয়া পদ্ধতি

বেশ কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি মেনে চলার মাধ্যমে চিকন শরীর মোটা করা সম্ভব। নিজের শরীরকে স্বাস্থ্যসম্মত করে গড়ে তোলার জন্য সবথেকে কার্যকরী পদ্ধতি হচ্ছে নিজেকে সচেতন করে গড়ে তোলা। আপনাকে আপনার দৈনন্দিন জীবনের প্রত্যেকটি বিষয় সম্পর্কে অনেক বেশি সচেতন হতে হবে। চলুন মোটা হওয়ার জন্য ঘরোয়া পদ্ধতি গুলো কি হতে পারে সেগুলো সম্পর্কে আলোচনা করা যাক-

  • সকাল সকাল ঘুম থেকে ওঠা

দৈনন্দিন খুব ভোরে ঘুম থেকে ওঠা আমাদের জীবনের অন্যতম একটি কাজ হিসাবে গ্রহণ করতে হবে। সকাল সকাল ঘুম থেকে ওঠা আমাদের শরীরকে সুস্থ রাখতে অন্যতম ভূমিকা পালন করে। আমাদের সকলের উচিত দেরি করে ঘুম থেকে না ওঠা এবং খুব ভোরে ঘুম থেকে উঠে কিছু শারীরিক ব্যায়াম এর অভ্যাস করা। এতে করে আপনার ক্লান্ত এবং চিকন শরীর দিন দিন সবল হতে থাকবে।

  •  শারীরিক ব্যায়াম করা

শারীরিক ব্যায়াম আমাদের শরীরকে সবল রাখতে অনেক বেশি সাহায্য করে। নিয়মিত ব্যায়াম করার মাধ্যমে একজন মোটা মানুষ চিকন হতে পারে, ঠিক তেমনি একজন চিকন মানুষ দিন দিন ভালো স্বাস্থ্যের অধিকারী হতে পারেন। সেক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই একজন ভালো অভিজ্ঞ প্রশিক্ষক এর পরামর্শ নিতে হবে। 

  •  ক্যালরিযুক্ত খাবার দিয়ে নাস্তা

সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর আপনি আপনার শারীরিক ব্যায়াম শেষ করবেন। তারপর অবশ্যই আপনাকে পর্যাপ্ত পরিমাণে ক্যালোরি এবং বিভিন্ন ধরনের পুষ্টিকর খাবার দিয়ে সকালের নাস্তা শেষ করতে হবে। যেহেতু আপনি আপনার চিকন শরীরকে অল্প সময়ের মধ্যে মোটা করতে চাচ্ছেন তাই আপনার খাবারে সবথেকে ক্যালরির পরিমাণ বেশি রাখতে হবে। সারাদিনের মধ্যে সকালের খাবার অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ তাই এই খাবারে আপনাকে অবশ্যই একটি ভাল মানের খাদ্য তালিকা নির্বাচন করতে হবে। 

  •  ফুড সাপ্লিমেন্ট নির্বাচন

বর্তমানে অনেক ভালো ভালো মানের ফুড সাপ্লিমেন্ট পাওয়া যায় যা আপনাকে আপনার শরীরের বিভিন্ন ধরনের পুষ্টি ঘাটতি পূরণ করতে সাহায্য করবে এবং আপনার শরীরকে অনেক বেশি সবল রাখতে সাহায্য করবে। ফুড সাপ্লিমেন্ট গুলো মূলত আপনার শরীরের কাঠামোগত পরিবর্তন করতে সাহায্য করবে। এক্ষেত্রে সবথেকে বেশি ভালো হবে যদি আপনি আপনার প্রশিক্ষকের কাছ থেকে ফুড সাপ্লিমেন্ট নির্বাচন করে নিতে পারেন।

  •  নিয়মিত সাঁতার কাটা

প্রতিনিয়ত সাঁতার কাটার অভ্যাস করা উচিত। নিয়মিত সাঁতার কাটলে আপনার শরীরের রক্ত সঞ্চালন এর গতি বৃদ্ধি পাবে এবং আপনি শারীরিক অনেক ধরনের রোগ থেকে মুক্তি পাবেন। নিয়মিত সাঁতার কাটার মাধ্যমে আপনি আপনার শরীরকে অনেক বেশি সবল করতে পারবেন।

  •  পর্যাপ্ত ঘুম

শরীরকে সুস্থ এবং মোটা করতে পর্যাপ্ত ঘুমের কোনো বিকল্প নেই। অবশ্যই আপনার প্রয়োজনের অতিরিক্ত ঘুমাতে হবে এবং সুযোগ পেলেই দিনে ২-৩ ঘন্টা ঘুমিয়ে নিতে হবে। প্রয়োজনের অতিরিক্ত ঘুম আপনার শরীরে ক্যালরি ধারণ করতে সাহায্য করবে এবং আপনি অনায়াসেই মোটা হয়ে যাবেন। 

সবধরনের অর্গানিক ফুড, ২০০+ আয়ুর্বেদ ঔষধ ও খেলার সামগ্রী ঘরে বসেই অর্ডার করুন আমাদের শপ থেকে: https://shop.healthd-sports.com/

খাদ্য তালিকায় পরিবর্তন

চিকন শরীরকে সহজে মোটা ঘুরতে গেলে অবশ্যই আপনাকে আপনার খাদ্য তালিকায় অনেক বেশি পরিবর্তন আনতে হবে। আপনাকে অবশ্যই অনেক বেশি বেশি ক্যালরিযুক্ত খাবার আপনার খাদ্য তালিকায় রাখতে হবে। চলুন জেনে নেই চিকন শরীর মোটা করার জন্য আপনার খাদ্য তালিকায় কি ধরনের পরিবর্তন আনতে হবে-

 ১. কার্বোহাইড্রেট এবং পুষ্টিকর খাবার

খাদ্য তালিকায় অনেক বেশি বেশি কার্বোহাইড্রেট এবং পুষ্টিকর খাবার রাখার চেষ্টা করতে হবে যাতে করে আপনি আপনার শরীরকে অনেক বেশি সবল এবং মোটা করতে পারবেন। কার্বোহাইড্রেট আপনার শরীরে শক্তি সঞ্চালন করবে এবং শরীরকে চিকন থেকে মোটা করতে অনেক বেশি সাহায্য করবে।

২.  বেশি বেশি খিচুড়ি খাওয়া

নিয়মিত সবজি দিয়ে হালকা নরম খিচুড়ি সপ্তাহে কমপক্ষে তিন দিন খাওয়ার অভ্যাস করুন। একটি স্বাস্থ্যসম্মত খাবার যা আপনাকে আপনার রোগা শরীর মোটা করতে অনেকটা সাহায্য করবে। অবশ্যই মনে রাখতে হবে খিচুড়ি যেন হালকা নরম হয়ে থাকে।

৩.  বেশি বেশি গোস্ত ও কলিজা খাওয়া

যদি সম্ভব হয় তাহলে প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় কলিজা এবং গোস্ত রাখুন। বেশি বেশি গোস্ত এবং কলেজে খেলে আপনি আপনার শরীরকে খুব সহজেই মোটা করতে পারবেন। শরীর মোটা করার পাশাপাশি আপনি কলিজা এবং গোস্ত খাবার মাধ্যমে আপনার শরীরে অনেক বেশি শক্তি পাবেন। 

৪.   ড্রিংক এবং ফ্যাটি যুক্ত খাবার

প্রতিদিন ড্রিংকস এবং ফ্যাট যুক্ত খাবার খাওয়ার অভ্যাস করতে হবে। এসকল খাবার আপনাকে আপনার শরীরে এনার্জি ধারণ করতে যেমন সাহায্য করবে তেমনি আপনি আপনার শরীরকে সহজে মোটা করতে পারবেন।

৫.  মিষ্টি যুক্ত খাবার

প্রতিবার খাওয়ার সময় মিষ্টি যুক্ত খাবার খাদ্যতালিকায় রাখার চেষ্টা করুন। আমরা জানি মিষ্টি আমাদের শরীরে অনেক বেশি এনার্জি প্রদান করে এবং আমাদের শরীরকে মোটা করতে সাহায্য করে। আপনি যদি অনেক বেশি  মিষ্টি যুক্ত খাবার খেতে না পারেন তাহলে আপনার খাবার তালিকায় বিভিন্ন ধরনের চকলেট রাখতে পারেন যা আপনি সহজেই খেতে পারবেন। 

মন্তব্য

মোটা হওয়ার প্রাকৃতিক ঔষধ কি? আশা করি উপরোক্ত আলোচনার মাধ্যমে আমরা ইতিমধ্যে জেনে গেছি মোটা হওয়ার জন্য প্রাকৃতিক ঔষধ বা পদ্ধতি কি হতে পারে। মূলত প্রাকৃতিক ভাবে মোটা হতে গেলে আপনাকে আপনার দৈনন্দিন জীবনের খাদ্য তালিকা এবং নিয়মকানুন এ পরিবর্তন আনতে হবে।

উপরিউক্ত পদ্ধতি গুলো সঠিকভাবে পালন করলে আপনি দুই থেকে তিন মাসের মধ্যে আপনার শরীরের একটি অন্যতম পরিবর্তন দেখতে পাবেন। তাই নিজের শরীরের উপর যত্নশীল হোন এবং সুস্থ থাকুন। স্বাস্থ্য বিষয়ক সকল পরামর্শ জানুন

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *